উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা প্যানেল নিয়োগের দাবিতে ঢাকাতে মানববন্ধন ও স্মারকলিপি এবং খোলাচিঠি প্রদান

বৃহস্পতিবার, ২৫ জুন ২০২০ | ১:০৬ অপরাহ্ণ | 233 বার

উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা প্যানেল নিয়োগের দাবিতে ঢাকাতে মানববন্ধন ও স্মারকলিপি এবং খোলাচিঠি প্রদান

উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা নিয়োগে দুর্নীতির প্রতিবাদে এবং এই বৈষম্যের নিয়োগে বঞ্চিত মেধাবী ছাত্রছাত্রীরা প্যানেলে নিয়োগের দাবিতে অদ্য ২৪ জুন (বুধবার) সকাল ১০ ঘটিকায় জাতীয় প্রেসক্লাব প্রাঙ্গণে এক মানববন্ধন করেন জেলা কোটা থেকে বঞ্চিত মেধাবী প্রার্থীরা। এরপর তারা জেলা প্রশাসক বরাবর একটি স্মারকলিপি প্রদান করেন।এই সময় একযোগে ঢাকা জেলা সহ সারাদেশে ৩০ টি জেলায় মানববন্ধন ও জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করা হয় বলে জানা যায়।

জানা যায়, যে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা পদে ২০১৮ সালে ১২.০১.০০০০.৩৮.১১.০০৪.২০১৭.৮২৬ নং স্মারকে ১৬৫০ জনের একটি নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। সকল প্রকার কোটা ও সরকারি সকল বিধি বিধান মানা হবে বলে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ ছিল। গতবছর ০২/০৮/২০১৯ ইং তারিখ প্রিলিমিনারি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়, যেখানে ২৮+ হাজার প্রার্থী অংশগ্রহণ করে মোট ১০ হাজার ৩৯জন প্রার্থী পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়। ওই বছরই ১৩/০৯/২০১৯ ইং লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়ে ৫১১৪ জন প্রার্থী উত্তীর্ণ হয়।

এরপর গত ১৮/১২/২০১৯ ইং তারিখ হতে ১৪/০১,২০২০ ইং তারিখ মোট ২৮ দিনে ভাইভা পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। ১৭/০১/২০২০ ইং তারিখ রোজ শুক্রবার বেলা ২ ঘটিকায় সরকারি ছুটির দিন প্রাথমিকভাবে উত্তীর্ণ প্রার্থীদের ১৬৫০ টি রোল প্রকাশ করা হয়। কিন্তু দীর্ঘ চার বছর পর নিয়োগ প্রক্রিয়া শেষে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর যে ফলাফল প্রকাশ করে তা অত্যন্ত হতাশাজনক বলে জানান তারা। এই নিয়োগের কোন অবস্থাতেই জেলা কোটা মানা হয়নি বরং কিছু জেলা থেকে অধিক পরিমাণে প্রার্থী নির্বাচন করা হয়েছে। ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলাতে ৩৩ জন নিয়োগ পাওয়ার কথা থাকলেও সেখানে নিয়োগ পেয়েছে ৫২ জন, আর রংপুরে জেলা কোটায় ৩৪ জন নিয়োগ পাওয়ার কথা থাকলেও নিয়োগ পেয়েছে মাত্র ২ জন। বৈষম্য শিকার সে সব জেলা থেকে প্রতিবন্ধী, এতিম, আনসার ও মুক্তিযোদ্ধা কোটা থেকে কিছু নিয়োগ দেয়া হলেও সাধারন মেধাবীদের কোন নিয়োগ দেয়া হয় নেই। এতে করে মেধাবী ছাত্র/ছাত্রীরা হতাশাগ্রস্থ হন।

তারা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা শেখ হাসিনার দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন দেশের এই ক্রান্তিলগ্নে দেশ গড়ার সৈনিক রূপে দেশের সরকারের সাথে থেকে আমাদের সকলকে ঐক্যবদ্ধ ভাবে করোনা পরবর্তী দুর্ভিক্ষ হতে দেশ ও জাতিকে রক্ষা করার জন্য উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা নিয়োগ ২০১৮ লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ও ভাই বা পরীক্ষায় অংশগ্রহনকারী সকল প্রার্থীকে প্যানেলের নিয়োগ যেন দেওয়া হয়। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণের জন্য তারা একটি খোলা চিঠিও লিখেন।মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর একটি সুপারিশই পারে শত শত বেকারের বৃদ্ধ মা-বাবার মুখে হাসি ফিরিয়ে আনতে ও মুজিব বর্ষ অঙ্গীকার অনুযায়ী বেকার থাকবে না কেউ এই ধারাবাহিকতা সাফল্য আনতে।এসময় মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন মো আরিফ হোসেন , আনন্দ কুমার চন্দ , বাশার সহ আরো অনেক মেধাবী জেলা কোটা বঞ্চিত প্রার্থীগণ।

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

Powered by Facebook Comments

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com