কবি সত্য সুন্দর গুপ্ত’র একগুচ্ছ কবিতা

শনিবার, ১২ মে ২০১৮ | ৭:৪৮ অপরাহ্ণ | 1388 বার

কবি সত্য সুন্দর গুপ্ত’র একগুচ্ছ কবিতা

১. চন্দ্রাবতী

ওগো চন্দ্রাবতী!
হৃদের অন্তরালে তোমার মুখোচ্ছবি
যা ছিলো মম মোর দিয়েছি সবি।
ঘন ঘোর আঁধার নিশিত বা প্রভার
শিউলি চামেলি সব ছড়ায়ে সৌরভ
তোমারে পেয়েছি আমি এই মোর গৌরব।

২. অনন্ত তুমি

তোমার চোখের দৃষ্টিতে আমার মন হারায় সবসময়,
তোমার ঐ অনন্ত সুন্দর হাসিতে আমি মুগ্ধ হই
মখমলী চুলের ঢেউ আমাকে নিয়ে যায়-
কোন এক ললাটের খুব কাছে,
যেখানে উষ্ণ চুম্বন স্পর্শ করে,
সিক্ত হয় এলোমেলো ভালবাসা…

রাতের গভীর থেকে আরও নির্জনে
আমি-তুমি স্বপ্নের সম্ভার সাজে,
অতি প্রচীন চর্চায় মুখোমুখি নতুন করে সাজে সব
জীবন্ত ভালোবাসা- অল্প; দীর্ঘ কিন্তু অজানা!

৩. গহনে বৃষ্টি

এ ভেজা বৃষ্টি রাতে –
তব চঞ্চল হৃদে, তব চঞ্চল তনু
হেরেছে গহীন গহন অম্বরে,
আমারে সেঁধেছে সে,আমিও সেঁধেছি তারে,
এ ভেজা বৃষ্টি রাতে।

৪. অবগাহনে

তোমারে নিয়ে গো সখি ঐ প্রভাত পানে
শিউলি ঝরা শিশিরে শিশিরের অবগাহনে
হেরেছি আমার হৃদয়ও মঞ্জুরী
তোমারও হৃদে মম হৃদয়ও সঞ্চরনী।
দিবে তব যদি ব্যাথা, হোক ইতি কথা
চাই না আমার রাঙা পুষ্প মঞ্জুরী,
কাহনে গহন, গহনে কাহন, এ কোন দহন জ্বালা
কুঞ্চিত আঁখি, কুঞ্চিত মন, এ কোন পড়িয়েছ বিনেসুতার মালা!

৫. হৃদয় হরণি

ওগো হৃদয় হরণি, কম্পনী হৃদতল
উচ্ছ্বাসি হাসি তব কম্পিত আখিঁ জল!
হেরেছি হৃদয়,হেরেছি তনু তবু ব্যাথা রয়
মুছিয়া শ্রাবণ, সময় প্লাবন, তব যদি দেখা হয়
আমায় হাসিয়া করিয়াছো খুন
জ্বালায়ে প্রণয় আগুন!

৬. মিছে অন্তলোক

আমি খোঁজেছি তোরে এ বিজন শাখে
আঁখি দোপাটি খুলো ঐ আঁখি পাতে….
এ হৃদলোকে বেঁধেছি তোরে
মিছে মায়ায়, মিছে ছায়ায়, মিছে অন্তলোকে।
আমি একা একা ওরে সুদূরিকা
করেছি বন্দিনী তোরে, এ যৌবণও ঘোরে।।
মিছে মায়ায়,মিছে ছায়ায়, মিছে এ অন্তলোকে।

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

Powered by Facebook Comments

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com