করোনা সচেতনতার পাশাপাশি প্রিয় কৃষক-কৃষাণী; যুবক ভাই-বোনদের প্র‌তি অনুরোধ

বৃহস্পতিবার, ০৭ মে ২০২০ | ৪:১৮ পূর্বাহ্ণ | 388 বার

করোনা সচেতনতার পাশাপাশি প্রিয় কৃষক-কৃষাণী; যুবক ভাই-বোনদের প্র‌তি অনুরোধ

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ঘরের কোণায় হলেও একটা কিছু ফসল ফলান’। খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করার স্বার্থে অল্প একটু জমিও যেন পড়ে না থাকে ।

করোনা সচেতনতার পাশাপাশি প্রিয়  কৃষক, কৃষাণী; যুবকভাই ও বোনদের প্র‌তি অনুরোধঃ-


প্রতি ইঞ্চি মাটিতে করবো হরেক রকম সবজি চাষ।  বিস্তৃত মাঠ ছাড়াও আমাদের রয়েছে অনেক অনাবাদি জমি। 
ভাই আপনারা সবাই জানেন কি?  ভয়াবহ কি পরিস্থিতির দিকেআমরা এগুচ্ছি। দয়া করে কৃষক, কৃষাণী; যুবকভাই ও বোনেরা আপনারা সে্বচ্ছায় এগিয়ে আসুন মানবতার বিলুপ্তি ঠেকাতে। 

মানুষের নিরাপত্তাই এখন মূল চ্যালেঞ্জ। একদিকে করোনার করালগ্রাস, অন্য দিকে খাদ্যের জন্য হাহাকার শুরু হবে। 
আমাদের দেশ আমদানী নির্ভর, বিদেশ থেকে নিত্য প্রয়োজনীয় প্রায় সকল পন্য আমদানী করতে হয়।


তাই দেশকে বাঁচাতে হলে দেশের মানুষকে বাঁচাতে হলে এখন করোনা প্রতিরোধ সচেতনার পাশাপাশি খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতেই হবে। 
আমাদের যে সম্পদ রয়েছে বা থাকবে তা কেবল মাত্র কৃষি।  কৃ‌ষি‌তে ব্যবহৃত এসব জমি আমাদের বড় সম্পদ।


দেশের সকল কৃষক, কৃষাণী; যুবকভাই ও বোনদের প্র‌তি অনুরোধ, আপনারা সাধ্যমত চেষ্টা করুন প্রতিটি বাড়িতে- ২০টি আদা, ২০ টি হলুদ, ১০টি বারোমাসি মরিচ, পুদিনা, ধনিয়া পাতা, থানকুনি, কয়েকটি ঢেঁঢ়শ গাছ, ২-৫ টি ধুন্ধুল, ২-৫টি চাল কুমড়া,  ২-৫টি মিষ্টি কুমড়া, ১০-১৫টি কচু, ৫টি বারোমাসি বেগুন, ৫টি চিচিংগা কয়েক লাইন গিমাকলমী, কয়েক লাইন পুঁইশাক, কয়েক লাইন ডাটা, পাট শাক ইত্যাদির বীজ বপন করুন।

প্রতিটি পাড়ায় পাড়ায় এ কাজ বাস্তবায়ন করুন।
এ সকল সবজি চাষ করতে হলে কেমন জায়গা দরকার——-
১ ছায়াযুক্ত স্খানে- আদা, হলুদ ২। অ-ফলা গাছে- ধুন্দুল৩। ঘরের ঢেলায়- কাচামরিচ, বেগুন ৪। ঘরের চালে- চাল কুমড়া ৫। পাকের ঘরের চালে- চাল কুমড়া, মিষ্টি কুমড়া ৬। টিউবওয়েলের নালায়- কচু ৭। যে খানে একটু রোধ পড়ে বাড়ির উঠান/উঠানের পাশে- পুইশাক, ঢেঁঢ়শ, কলমী, চিচিংগা, করলা, মিষ্টি কুমড়া, ধনিয়া, পুদিনা ৮। বাড়ির সীমানায়- বরবটি, ঢেঢ়শ, চালকুমড়া, করলা, মিষ্টি কুমড়া ৯। বাড়ির গেইটে- সারি করে মরিচ, বেগুন, ঢেঁঢ়শ, পেঁপে ১০। পুকুরপাড়ে- পুইশাক, ঢেঁঢ়শ, কলমী, চিচিংগা, করলা, মিষ্টি কুমড়া, ধনিয়া, পুদিনা ১১। পুকুরের কিনারায়- কচু ১২। বাড়ির রাস্তায় কাঠের গাছে- ধুন্দুল ১২। বাথরুমের পাশে ও চালে- ধুন্দুল ১৩। বাড়ির সীমানায় বেড়া হিসেবে দিতে পারেন লেবু, ফলও পাবেন বেড়াও হবে। ১৪। গ্রামের প্রতিটি রাস্তার ধারে অ-ফলা কাঠ গাছে লাগাতে পারেন ধুন্দুল ১৫। স্কুল,মাদ্রাসা মসজিদ, মক্তব, মন্দিরসহ যাবতীয় প্রতিষ্ঠানে এ সকল সবজি চাষ করুন। ১৬। ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে- বালতি, টবে লাগাতে পারেন পুদিনা, বিলাতী ধনিয়া ১৭। ব্যবসা প্রতিষ্ঠান/দোকানের আশপাশ ও ছাদ বা চালায় লাগাতে পারেন চালকুমড়া, মিষ্টি কুমড়া, চিচিংগা, করলা, শশা, মরিচ, পুদিনা, বিলাতী ধনিয়া ইত্যাদি।


এ দেশ আমাদের, আমরাই করবো সবুজায়নের দেশ, পারিবারিক চাহিদা মোতাবেক নিরাপদ সবজি নিজে উৎপাদন করবো নিজে খাবো। বাজার থেকে কিনবো না।।

আমরা আশা করছি আমাদের অনেক টাকা আছে, বাজার থেকে কিনে খাবো।  ভুলে যান এ আশা। কারন বাজারে যেতে পারবেন না, বাজারে গেলেও থাকবে না এ সকল পন্য, কারন উৎপাদন করার লোক থাকবে না।  বাজারে যাও থাকবে তা চাহিদার তুলনায় অনেক কম। ক্রেতা বেশি বিক্রেতা কম পন্যও কম।
আসুন যুবক, কৃষক কৃষাণী ভাই বোনেরা পণ করি- ধনিয়া পাতা, পুদিনা, আদা, শশা, কাচা মরিচ, লেবু ইত্যাদি বাজার থেকে কিনে খাবো না,  নিরাপদ সবজি নিজে উৎপাদন করে খাবো।

লেখকঃ ফরহাদ আহমদ, উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা, গাজীপুর সদর, গাজীপুর এবং সাধারন সম্পাদক, বঙ্গবন্ধু ডিপ্লোমা কৃষিবিদ পরিষদ, গাজীপুর জেলা শাখা ও সাংগঠনিক সম্পাদক ডিপ্লোমা কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশ, ঢাকা অঞ্চল ও গাজীপুর জেলা। মোবাইল নম্বর- 018 1803 5710.

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

Powered by Facebook Comments

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com