পাহাড়ি কৃষিতে ম্যাথ (MATH) মডেল

বৃহস্পতিবার, ০৮ অক্টোবর ২০২০ | ৯:৪৪ পূর্বাহ্ণ | 239 বার

পাহাড়ি কৃষিতে ম্যাথ (MATH) মডেল

ম্যাথ (MATH) মডেল কী?

MATH এর পূর্ণ নাম Modern Agricultural Tecknology in The Hi lls. এটি হচ্ছে পাহাড়ী অঞ্চলের উপযোগী চাষাবাদের একটি মডেল।

এ মডেলেরবিশেষত্ব কী ?

এটি ভূমির ক্ষয়রোধ করেভূমির উর্বরতা বাড়ায়একই জমিতে উন্নত পদ্বতিতে চাষাবাদ করে ফসল উৎপাদন করা যায়পাহাড়ী কৃষকদের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন ঘটানো সম্ভব।

এই মডেলের মাধ্যমে পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর জুম চাষ পর্যায়ক্রমে বিলুপ্ত করা সম্ভব বাস্তাবয়ন কৌশলঃ

  • ধাপ-১: জমি নির্বাচন প্রক্রিয়ার মাধ্যমে ‘জুমি’ ফসলগুলো আবাদের ব্যবস্থা করা
  • ধাপ-২: প্রথম বৃষ্টির পর পরই ‘ম্যাথ’ মডেলের অনুসরণে দ্রুত বর্ধনশীল ফসল যেমন, পেঁপে, কলা; স্বল্প মেয়াদী- পেয়ারা, লেবু, দীর্ঘ মেয়াদী- কাঁঠাল, লিচু, আম, সফেদা, জাম্বুরা, কমলা, জাম ইত্যাদি এবং বনজ গাছ ‘জুম’ ক্ষেতে একই সময়ে রোপন করা।
  • ধাপ-৩: ধান, ভুট্টা, কাউন ও তেল সংগ্রহের পর পাহাড়ের ঢালভেদে ‘জুম’ ক্ষেতের মধ্যে আড়াআড়িভাবে সারিতে ( Strip Cultivation) আনারস, অড়হর এসব ফসল বপন/রোপণ করা।
  • ধাপ-৪: সময়ভেদে ‘জুমি’ ফসল সংগ্রহের পর পর মৌসুম ভিত্তিক (কচু, ঢেঁড়স, বরবটি, টমেটো, বেগুন, মরিচ) ইত্যাদি ফসলের আবাদ করা।
  • ধাপ-৫: সবজি চাষের পাশাপাশি জমি পরিষ্কার করে ‘আচ্ছাদন ফসল (Cover Coop)’ আবাদ করা।
  • ধাপ-৬: ‘ম্যাথ’ এর আওতায় উৎপাদিত কৃষি পণ্য কৃষক সমিতি গঠন করে Central Procurement and Distribution Point (CPDP) এর মাধ্যমে বাজারজাত করা ।
  • ধাপ-৭: মৃত্তিকা সস্পদ উন্নয়ন ইনস্টিটিউট কর্তৃক তিন ভাগে বিভক্ত পাহাড়ের ১ম ও ২য় শ্রেণীর পাহাড়ের বেলায় ম্যাথ মডেলটি প্রযোজ্য। অন্যথায় যেখানে ‘জুম’ আছে সেখানেই উক্ত মডেল কার্যকর হবে।

‘ম্যাথ’ মডেলের উপকারিতাপাহাড়ী ভূমির সর্বোচ্চ ভূমি নিশ্চিত করা যায়। একই জমিতে বহু ফসল উৎপাদনের মাধ্যমে ভূমির উর্বরতা বৃদ্ধি ও মাটির ক্ষয় রোধ করা যায়।

শস্য পর্যায় ( Coop rotation) অবলম্বনের মাধ্যমে ভূমির উর্বরতা বৃদ্ধি করে ও মাটির ক্ষয়রোধ করে স্থায়ীভাবে বনায়ন সৃষ্টির মাধ্যমে প্রাকৃতিক বিপর্যয় রোধ করা।

C P D P মাধ্যমে উৎপাদিত পণ্যের সমবায় ভিত্তিক বাজারজাতকরণ করা যায়। পর্যায়ক্রমে এ মডেল বাস্তবায়ন হলে পাহাড়ী অঞ্চলে ‘জুম’ চাষ বিলুপ্ত হবে সর্বোপরি পাহাড়ী এলাকায় ফসলের ফলন বৃদ্ধি পাবে মাটির ক্ষয়রোধ হবে, আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন সম্ভব হবে ও প্রাকৃতিক ভারসাম্য রক্ষা পাবে।

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

Powered by Facebook Comments

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com