বৈষম্যের শিকার ৩০ হাজার মাঠ কর্মকর্তা

বুধবার, ১০ জানুয়ারি ২০১৮ | ৬:৪৩ অপরাহ্ণ | 1866 বার

বৈষম্যের শিকার ৩০ হাজার মাঠ কর্মকর্তা

মহিউদ্দিন মোল্লা, কুমিল্লা

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের প্রায় ৩০ হাজার উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা বেতন ও পদোন্নতির ক্ষেত্রে ৪৭ বছর ধরে বৈষম্যের শিকার হচ্ছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তাদের সূত্র জানায়, দেশের প্রতিটি ইউনিয়নে উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তাদের ৩টি করে পদ রয়েছে।

প্রতিটি উপজেলা কৃষি কর্মকর্তার (কৃষিবিদ) কার্যালয়ের অধীনে তারা কাজ করেন। ডিপ্লোমা প্রকৌশলীদের মতোই ডিপ্লোমা কৃষিবিদরা ৪ বছর মেয়াদি ডিপ্লোমা কোর্স সনদধারী। কিন্তু ডিপ্লোমা কৃষিবিদ উপসহকারী কৃষি অফিসাররা গত ৪৭ বছর ধরেই বেতন বৈষম্যের শিকার।

ডিপ্লোমা প্রকৌশলী পদের প্রারম্ভিক বেতনক্রম দশম গ্রেড। অপরদিকে ডিপ্লোমা কৃষিবিদদের প্রারম্ভিক বেতনক্রম ১১তম গ্রেডে। শুধু তাই নয় ডিপ্লোমা প্রকৌশলীরা পদোন্নতি পেয়ে সংশ্লিষ্ট বিভাগে তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী পর্যন্ত হতে পারছেন।

কেউ কেউ আবার প্রধান প্রকৌশলী হওয়ার সৌভাগ্যও অর্জন করেছেন। অথচ ডিপ্লোমা কৃষিবিদরা কোনো পদোন্নতি ছাড়াই জীবনের দীর্ঘ চাকরি জীবন শেষ করছেন। এ অবস্থায় বঞ্চিত উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তারা হতাশায় বিপর্যস্ত।

২০০৫ সালের আগে উপসহকারী কৃষি অফিসারদের পদবি ছিল ব্লক সুপারভাইজার। তখন তাদের পদবি পরিবর্তন করা হয়েছিল। কিন্তু কোনো মান উন্নয়ন হয়নি। বেতনক্রমেরও কোনো উন্নতি হয়নি।

দীর্ঘ আন্দোলন সংগ্রামের কারণে বিগত সরকার তাদের পদনাম ২০০৫ সালের ২৩ এপ্রিল উপসহকারী কৃষি অফিসার হিসেবে মঞ্জুরি প্রদান করে।

ডিপ্লোমা কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন অব বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি এটিএম আবুল কাশেম বলেন, উপসহকারী কর্মকর্তারা কৃষি বিভাগের প্রাণ। ৩০ হাজার মাঠ কর্মকর্তাকে বঞ্চিত করে কৃষিকে এগিয়ে নেওয়া যাবে না।

সংবাদসূত্রঃ বাংলাদেশ প্রতিদিন

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

Powered by Facebook Comments

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com