মো. তাজ উদ্দিন সম্রাট’র কবিতা

শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ৭:২৩ অপরাহ্ণ | 112 বার

মো. তাজ উদ্দিন সম্রাট’র কবিতা

১. তওবা

হোস না যত বিপদগামী কিংবা পাপে ভার ঝোলা
আয় ফিরে আয় প্রভূর নিকট, রহমতের দ্বার খোলা।
পাপী হলেও হতে পারিস প্রভুর দয়ার দারস্থ্য
দয়াল তিনি করেন ক্ষমা; করেন নাতো দ্বার অস্ত।

সারা জীবন লক্ষ পাপে মুনকার নকীর ভার হলো
আর কত কাল চলবে এমন? এবার পূণ্যের দ্বার খোলো।
কথা কাজে ঠিক ছিলো না, ঠিক ছিলো না ওয়াদা,
বয়স ভারে হচ্ছো নূহ্য, যাচ্ছে সময় খোঁয়া, তা
ভুললে ওসব যায় কী চলা? করে জনম অনিষ্ট
প্রভূর কাছে সেটুক ভালো— ঠিক যতটা সনিষ্ঠ।

হচ্ছে সময় আখের গোছাও, তওবা কর পাপ কাজের
করলে দেরী আর পাবে না, খুব বেশি নেই আর সাঁঝের।
দু’হাত পাতো প্রভূর কাছে, সময় হলো, নয় আর ছল
পেলেও তুমি পেতে পারো, দয়াল প্রভূর দয়ার ফল।

যতই তুমি ভুল করেছো; যতই থাকো পাপ কাজে
তওবা কর, তওবা কর, তওবা কর— আর না যে।
প্রভূর পথেই জীবন গড়ো, তার কাছে রোজ চাও ক্ষমা
তিনিই তোমার আদি-অন্ত, ইহঃ ও পরঃ, তাও জমা।

২. নষ্ট সংলাপ

:এই মেয়ে- তোর নাম কিরে?
:নাম দিয়ে তোর কাম কি রে?
:এই মেয়ে- তোর বাড়ি কৈ ?
:বাড়ি তো নেই পথেই রৈ।

:এই মেয়ে- তোর বাপ কে রে?
:বাপ পামু কৈ ? কেবল মা রে।
:ও মেয়ে তুই বলিস কি?
:শুনতে পাস নাই ? কানে ঘী ?

:এই মেয়ে- তুই করিস কিরে?
:করবো কি আর? বেড়াই ফিরে।
:এই মেয়ে- তোর সাহস আছে?
:সাহস ছাড়া কেউ কি বাঁচে?

:এই মেয়ে– তুই কুমারী?
:সন্তান নেই; এই শুমারি।
:এই মেয়ে- তোর ভয় করে না?
:কামড় খেয়ে কেউ মরে না।

:এই মেয়ে- তুই কি ধনী?
:তা জানি না, একটা যৌনী।
:এই মেয়ে- তোর স্বামী আছে?
:হয় না তো কেউ, কেবল আঁচে!

:প্রেমিক ক’ জন? এক না দুই?
:প্রেমিক কি রে? কেবল শুই।
:ও মেয়ে- কেউ কি তোকে ভাবায়?
:ভাবনা কিরে ? আজ তুই এলি, কাল ছিলো তোর বাবা এ।

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com