কৃষিই অর্থনীতির মেরুদণ্ড

বৃহস্পতিবার, ৩০ এপ্রিল ২০২০ | ১২:১৮ পূর্বাহ্ণ | 1023 বার

কৃষিই অর্থনীতির মেরুদণ্ড

বাংলাদেশ কৃষি প্রধান দেশ। বাংলার কৃষক হচ্ছে বাংলার কৃষির প্রাণকেন্দ্র। যদি কৃষিই অর্থনীতির হার্ট হয় তবে কৃষক হবে জাতির মেরুদণ্ড। এদেশের প্রায় ৭৫% লোক প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে কৃষির উপর নির্ভরশীল। দেশের মোট রপ্তানি আয়ের ১৭% আসে কৃষিখাত থেকে। জিডিপিতে কৃষির অবদান ১৪%। তাই বাংলাদেশর অর্থনীতি আজ অবদি কৃষির উপর সম্পূর্ণ নির্ভরশীল।

বাংলার এই কৃষি ব্যবস্থার সাথে ওতোপ্রোতোভাবে জড়িত বাংলার কৃষক ও কৃষিবিদগণ ।কৃষিবিদগনের লব্দ জ্ঞান ও কৃষকেদের অক্লান্ত পরিশ্রমে ঘোরে বাংলাদেশের অর্থনীতির চাকা। কৃষকের উৎপাদিত পন্য এদেশের অর্থনৈতিক চাকা রাখে সচল। তাই তো কবি বলেছেনঃ

webnewsdesign.com

”সব সাধকের বড় সাধক আমার দেশের চাষা,
দেশ মাতারই মুক্তিকামী দেশের সে যে আশা!”

বাংলার মাটি ও মানুষের সাথে কৃষিবিদ ও কৃষকের সম্পর্ক নিবিড়! এদেশের খেটে খাওয়া কৃষক – কৃষাণীরা প্রখর রোদে পুড়ে, বৃষ্টিতে ভিজে, মাথার ঘাম পায়ে ফেলে, অক্লান্ত পরিশ্রম করে ফসল ফলায়। আর এই ফসল উৎপাদনের, পরিবহন ও খাদ্য গ্রহণের মাধ্যমে কৃষক ও সাধারণ মানুষ জীবিকা নির্বাহ করি। কৃষকের অক্লান্ত পরিশ্রমে এদেশে ভরে উঠে ফসলের সমারোহ।

কৃষককূলের দিনরাত্রি হাড়ভাঙ্গা পরিশ্রম ও অনেক ত্যাগের বিনিময়ে গড়ে উঠেছে এদেশের অর্থনীতি। জাতীয় আয় সৃষ্টিতে কৃষকের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ। কৃষকের উৎপাদিত পন্য একদিকে যেমন দেশের মানুষের চাহিদা মিটায়, তেমনি বিদেশে রপ্তানি করে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জিত হয়। তাই এদেশের প্রগতির অবিচ্ছেদ্দ্য অংশ হলো বাংলার কৃষি ও কৃষক।

১৯৭১ সালে সদ্য স্বাধীন বাংলাদেশের জনসংখ্যা ছিল সাড়ে সাত কোটি। আজ সেটা প্রায় ১৮ কোটি। খাদ্য ঘাটতির দেশ হতে খাদ্য উদ্বৃত্তের দেশে পরিনত হওয়ার পেছনে যে কারিগরগণ কৃষকের পেছনে সর্বদা ছায়ার মত লেগে আছে তারা হচ্ছে এদেশের সূর্য সন্তান কৃষিবিদ, কৃষিবিজ্ঞানী ও কৃষি সম্প্রসারনকর্মীগন। কৃষকদের অভিভাবক হিসেবে তারা সবসময় কৃষকের তথা দেশের ভাগ্য উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছেন নিরবে নিভৃতে।

বৈশ্বিক মহামারী কোভিড-১৯ ভাইরাসে পৃথিবীর সকল দেশ সকল সেক্টর ও অর্থনীতি আজ থমকে গেছে। কিন্তু থেমে নেই কৃষকের মহাযজ্ঞ। জাতিসংঘের খাদ্য সংস্থা এফএও এর পূর্বাভাস বিশ্বের ৩০ টি দেশে দেখা দিবে দুর্ভিক্ষ। যা নিশ্চিতভাবেই ভয়ের কারন।আমাদের দেশে চলমান মৌসুমে বোরোধান, শাকসবজি ও ফলের বাম্পার ফলন আশা করা যাচ্ছে। এতে করে চলমান করোনা মহামারীতে খাদ্য সমস্যায় আমরা উতরে যাব হয়তো। কিন্তু যাদের কারনে অর্থনীতির চাকা ও মুখে দুমুঠো অন্য উঠছে তাঁদের বেলায় আমাদের ভাবনা ও জ্ঞান খুবই নগন্য।

এবার আসুন একটু জেনে নেই কৃষিবিদগন দেশের সমৃদ্ধির জন্য কি কাজ করছেন –

১। গবেষনার মাধ্যমে একটি নতুন জাত উদ্ভাবনে ১০-২০ বছর ব্যায় করছে।
২। উদ্ভাবিত কৃষি প্রযুক্তি সম্প্রসারণে কৃষকের সাথে নিরবিচ্ছিন্নভাবে কাজ করা।
৩।মানসম্পন্ন বীজ উৎপাদন, সংরক্ষণ ও কৃষকের মাঝে বিপণন।
৪। সার, সেচ, বীজ ও কীটনাশক সময়মত কৃষকের দোরগোড়ায় পৌঁছে দেওয়া।
৫। ফসলের রোগবালাই দমনে অতন্দ্র প্রহরীর ন্যায় মাঠে ময়দানে সর্বদা কৃষকগনকে পরামর্শ প্রদান।
৬। ফসল উৎপাদনে যান্ত্রিকীকরণে।
৭। বানিজ্যিক কৃষির মাধ্যমে বেকারত্ব দূরীকরণ ও সামগ্রিক পুষ্টি চাহিদা নিশ্চিতকরণ।
৮। বিদেশি ফল ও ফসলকে আমাদের আবহাওয়া উপযোগী ও জনপ্রিয়করণ।
৯। মাঠ পর্যায়ে দক্ষ কলম, চারা ও বীজ উৎপাদনকারী উদ্যোক্তা তৈরী করা।
১০। হর্টিকালচার সেন্টার এর মাধ্যমে লক্ষ লক্ষ্য মানসম্মত ফল, ফুল ও সবজির চারা উৎপাদন।
১১। কৃষি প্রশিক্ষণের মাধ্যমে দক্ষ কৃষক তৈরী করা।
১২। কৃষি শিক্ষার মাধ্যমে দক্ষ কৃষিবিদ ও ডিপ্লোমা কৃষিবিদ তৈরী করা।
আরও অসংখ্য কর্মজজ্ঞ।

বাংলাদেশর কৃষকগণ অতি সহজ ও সরল ভাবে জীবন-যাপন করে। তাদের জীবনের একমাত্র সম্বল হালের গরু, কৃষি যন্ত্রপাতি ও হাড়ভাংগা খাটুনি। তারা ভাগ্যের উপর পরিপূর্ন বিশ্বাস রেখে কাজ করে যায়। সারাদিন মাঠে কাজ করতে ভালোবাসে। প্রখর রোদ, বৃষ্টি তাদের কাবু করতে পারে না। মাঠভরা ফসল দেখলে তাদের মুখে হাসি ফুটে আনন্দে মন নেচে উঠে।

খাদ্যদব্য ও নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রবাদি ও এদেশের অধিকাংশ খাদ্যের যোগান দাতা কৃষক।কৃষকরা কৃষি কাজের সাথে জড়িত থাকার কারণে যেমন বেকারত্বের হার হ্রাস পাচ্ছে, ঠিক তেমনি কর্মসংস্থান ও সৃষ্টি হচ্ছে। কৃষকের ভাগ্যের সঙ্গে এদেশের অগণিত মানুষের ভাগ্য ওতোপ্রোতোভাবে জড়িত।

দুঃখ, বেদনা, দারিদ্র, লাঞ্ছনা, গঞ্জনা, সহ্য করে কৃষক-কৃষাণীরা যেভাবে দেশ ও দেশের মানুষের সেবা করে যাচ্ছে তার তুলনা নেই। সে জন্য এদেশের উন্নতি করতে হলে প্রথমে কৃষকদের উন্নতি সাধন করতে হবে।

দৃষ্টিভঙ্গির আমূল পরিবর্তন করতে হবে কৃষি ও কৃষিবিদগণের প্রতি। ন্যায্য মূল্য নিশ্চিত করতে হবে কৃষকের উৎপাদিত পন্যের। অন্যথায় অন্যান্য সেক্টরের ন্যায় মুখ থুবড়ে পড়বে আমাদের চলমান কৃষ্টি, আমাদের মেরুদণ্ড আমাদের অর্থনীতি, সাফল্যের ও সমৃদ্ধির কৃষি।

লেখকঃ উপজেলা কৃষি অফিসার, লৌহজং, মুন্সীগঞ্জ

এপ্রিল ২৯, ২০২০

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

Powered by Facebook Comments

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com