পুকুরের পানির লাল শেওলা ও তার প্রতিকার

শুক্রবার, ০৭ মে ২০২১ | ৪:০৪ পূর্বাহ্ণ | 548 বার

পুকুরের পানির লাল শেওলা ও তার প্রতিকার

পুকুরের পানিতে যে কোন অতিরিক্ত শেওলা মাছের জন্য ক্ষতিকর। শেওলা মাছর স্বাভিক ভাবে শ্বাসপ্রশ্বাস নিতে বাধা সৃষ্টি করতে পারে, হজম পক্রিয়ায় সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে, শেওলা পুকুরে অক্সিজেন ও প্রাকৃতিক খাবার তৈরীতে বাধা হয়ে দাঁড়ায় । পুকুরের পানিতে লাল শেওলা হলে করণীয় কি নিচে আলেচনা করা হলে।

লাল শেওলা কি ও কত প্রকার : লাল শেওলা সাধারণত দুই প্রকার।


১।পানিতে অতিরিক্ত আয়রন জনিত স্তর

২। ইউগ্লেনা জনিত স্তর

দুই প্রকার লাল শেওলা চেনার উপায়ঃ

এটি সব সময়ই লালচে হয়ে থাকে এটির রং কোন সময়ই পরিবর্তন হয় না। লাল স্তরের মধ্যে হাত ঢোকালে সেগুলো হাতের সাথে লেগে থাকে।

১। পানিতে অতিরিক্ত আয়রন জনিত স্তরঃ


পানিতে আয়রনের পরিমান বেশি হয়ে গেলে বা আয়রন সম্বলিত ভূ-গর্ভস্থ পানি পুকুরে দিলে পানিতে লাল স্তর হয়।

প্রতিকারের উপায়ঃ


আয়রন মুক্ত স্তরে  বোরিং স্থাপন করতে হবে। সম্ভব না হলে ঘাস সম্বলিত নালা বা নালার মধ্যে ধানের খড় বিছিয়ে দিয়ে পানি প্রবাহিত করে একটি পুকুরে ফেলতে হবে। তাহলে পানিতে থাকা আয়রন ঘাস/ধানের খড় শোষন করে নিবে।

তারপর মূল পুকুরে পানি সরবরাহ করতে হবে। এসব যদি সম্ভব নাহয় তাহলে বাঁশ বা খড়ের দড়ি দিয়ে শেওলা উঠিয়ে ফেলতে হবে। পুকুরে পর্যাপ্ত রোদ নিশ্চিত করতে হবে। প্রতি শতকে ফিটকিরি ১০০গ্রাম, ২০০ গ্রাম চুন অথবা ২৫০ গ্রাম জিওলাইট, ব্যবহার করা যেতে পারে। এবং পরপর তিন দিন প্রতি শতকে ১০০ গ্রাম করে ইউরিয়া সার প্রয়োগ করতে হবে পানির নাথে মিশিয়ে।

২। ইউগ্লেনা জনিত স্তরঃ


পানিতে ইউগ্লেনা নামক বহুকোষী প্রাণীর উপস্থিতি বেড়ে গেলেই মুলত লাল স্তর দেখা যায়।  এই ধরনের সর দিনের বেলায় সূর্যালোকের উপস্থিতিতে লালচে-বাদামী বর্ণ ধারণ করে কিন্তু আর সূর্যাস্ত গেলে সবুজ বা বাদামী রং ধারন করবে। এটার মধ্যে হাত কিংবা কোন কাঠ ঢুকিয়ে দিলে দুরে সরে যাবে  আবার হাত বা কাঠ বের করে নিলে সাথে সাথেই মুদে যায়।

প্রতিকারের উপায়ঃ


তিন ভাবে পানির ইউগ্লেনা প্রিতিকার করা যায়।

১। যাদের পুকুরে ইউগ্লেনা হয়, তাদের পুকুরে শতক প্রতি ৪/৫ ফুট গভীরতায় ১ গ্রাম পন্ডকেয়ার ১ গ্রাম চিনি ১ লিটার পানির সাথে মিশিয়ে তিন ঘন্টা পর পুকুরে ছিটিয়ে দিন।
অথবা শতকে ১০০ গ্রাম জিওলাইট, ১ গ্রাম পন্ডকেয়ার, ২ লিটার পানির সাথে মিশিয়ে প্রয়োগ করুন।

২। ইউগ্লেনা হলে স্তরটি একপাশে চাপিয়ে বা বাতাসে এক পাশে চলে আসলে ৩ দিন অন্তর-অন্তর তুলে ফেলতে হবে এইভাবে ৩-৪ বার প্রক্রিয়াটির পুনরাবৃত্তি করতে হবে।

৩। জমে থাকা ইউগ্লেনার স্তরের উপর প্রতি শতকের জন্য ১ কেজি হারে টাটকা দলা অবস্থায় থাকাতেই পুকুর পাড়ে নিয়ে তাৎক্ষণিক ভাবে পাথুরে চুনে ( প্রতি কেজিতে ২০০ মিলি) পানি ছিটিয়ে দিয়ে পাউডার বানিয়ে ঠান্ডা হলেই সতর্কতার সাথে ইউগ্লেনার স্তরের উপর ছিটিয়ে দিন।

সর্তকতাঃ


চুন প্রেয়োগের সময় হাতে গ্লাভস, চোখ, মুখ ও দেহের সুরক্ষিত করে নিতে হবে।

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

Powered by Facebook Comments

webnewsdesign.com

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com