ফুলের রাজ্যে নতুন রানীর নাম নন্দিনী

রবিবার, ১১ জুলাই ২০২১ | ৯:৩৭ অপরাহ্ণ | 103 বার

ফুলের রাজ্যে নতুন রানীর নাম নন্দিনী

ফুলের রাজ্যে নতুন রানীর নাম হচ্ছে নন্দিনী। নন্দিনীর ইংরেজি নাম ‘লিসিয়ানথাস’। এর বৈজ্ঞানিক নাম ‘এস্টোমা গ্রান্ডিফ্লোরাম’। গ্রান্ডিফোরাম জাপানি ভাষায় তরুকোগিকিও এবং আমেরিকায় ‘আমেরিকান গোলাপ’ নামে পরিচিত।

 

জেনেটিনসিয়া পরিবারের অন্তর্ভুক্ত বর্ষজীবী গুল্মজাতীয় উদ্ভিদ এটি। এটি মূলকাণ্ড এবং পাতায় বিভক্ত, পাতার রং নীলাভ সবুজ রঙের। গাছটি লম্বায় ২০ থেকে ৬০ সেন্টিমিটার পর্যন্ত হয়। নন্দিনী দেখতে অনেকটা জারবেরা ও গোলাপের মাঝামাঝি। এই ফুল ৪৫ টি রঙে দেখা যায়। একটি গাছে কমপক্ষে ৮০ থেকে ১২০ টি ফুল ফোটে। উৎপত্তিস্থল যুক্তরাষ্ট্রে হলেও এই ফুলের চাষ নিয়ে গবেষণা হয়েছে জাপানে। গত দশক থেকে জাপান, ইউরোপ, আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়া, থাইল্যান্ড, ভারত, চীন, নেপাল, ভুটানসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এই ফুলের জনপ্রিয়তা ও বাণিজ্যিক উৎপাদন দিন দিন বেড়েই চলেছে।

webnewsdesign.com

কাট ফ্লাওয়ার হিসেবে ফুলের জগতে এর অবস্থান সবার ওপরে। একক ও দ্বৈত রঙের ৮০টি অধিক ফুল দেখা যায়। সাধারণত এই ফুল গাছ থেকে তোলার পর প্রায় ২০ দিন এবং গাছে ফোটা অবস্থায় ৩৫ থেকে ৪০ দিন সতেজ থাকে।

 

ফুলটি বুনো বৈশিষ্ট্যের। ঝড়, বৃষ্টি, প্রচণ্ড গরম বা অন্যান্য প্রাকৃতিক দুর্যোগেও এটি অক্ষত থাকে। প্রতিটি ফুল শক্ত ডাঁটা বা বৃন্তের ওপর থাকে বলে কখনো বেঁকে যায় না বা নুয়ে পড়ে না।

 

একেকটি গাছ একাধিক মৌসুমে ফুল দিতে পারে।চারা লাগানোর ৯০ দিনের মধ্যে ফুল তোলা যায়।

 

আমাদের দেশের বেশিরভাগ ফুল শীতকালে ফোটে। কিন্তু গ্রীষ্মকালসহ সারাবছরই নন্দিনী ফুল উৎপাদন সম্ভব। বর্তমানে প্রতিটি গাছে ১৫ থেকে ২০টি ফুল ফুটছে। তবে একটি গাছে সর্বোচচ ৬০টি ফুল উৎপাদন করা সম্ভব। ফুলপ্রেমীরা তাদের বাড়ীতে ফুলদানিতে ১০ থেকে ১৫ দিন পর্যন্ত শুধু পানিতে ভিজিয়ে সংরক্ষণ করা যায়। সে দিক থেকে আমাদের দেশের ক্রমবর্ধমান ফুলের চাহিদার প্রেক্ষিতে এটি খুবই উপযোগী।

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

Powered by Facebook Comments

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com