একজন উপসহকারী কৃষি অফিসারের বাংলার কবিতা

আমার বাবা এবং শৈশব স্মৃতি

শনিবার, ০২ জানুয়ারি ২০২১ | ১১:২০ অপরাহ্ণ | 456 বার

আমার বাবা এবং শৈশব স্মৃতি

[contact-form][contact-field label=”Name” type=”name” required=”true” /][contact-field label=”Email” type=”email” required=”true” /][contact-field label=”Website” type=”url” /][contact-field label=”Message” type=”textarea” /][/contact-form]

[contact-form][contact-field label=”Name” type=”name” required=”true” /][contact-field label=”Email” type=”email” required=”true” /][contact-field label=”Website” type=”url” /][contact-field label=”Message” type=”textarea” /][/contact-form]

 

বাবা ছিলেন আদর্শ একজন কৃষক
করতেন জমি চাষ,
গোলা ভরা ধান ছিলো
চলতো বারো মাস।

 

ভোর বিহানে যেতেন বাবা
জমি চাষের তরে,
একটা কিছু মুখে দিয়ে
যা-ই থাকতো ঘরে।

 

হাতে ছিলো হালের বলদ
কাঁধে লাঙ্গল জোয়াল,
খড়ের গাদায় বেধে যেতেন
গাভী একটা দোয়াল।

 

ক্ষণিক পরে বাবার জন্য
মা পাঠাতেন নাস্তা,
যাতে ছিলো ক্ষুদের চটা
আর কিছু পান্তা।

 

নাস্তার পাত্র বেধে দিতেন
খয়রা তবন দিয়ে,
বেশ খানিক পথ এগিয়ে দিতেন
পানির পাত্র নিয়ে ।

 

চটা,পান্থা খেয়ে বাবা
নিবারণ করতেন ভুখ,
আলহামদুলিল্লাহ্ বলে শোকর গুজারে
গামছায় মুছতেন মুখ।

 

কয়েক মাস পর বাড়িতে যখন
আসতো পাকা ধান,
পান মুখে মায়ের হাসি
ছিলো অফুরান।

 

ডিজিটাল ছোঁয়ায় সব বদলেছে
পেশায় হয়েছে যোগ্য,
বদলেছে জোয়াল, কাঠের লাঙ্গল
বদলায়নি কৃষকদের ভাগ্য।

লেখিকাঃ

নাজমা সিদ্দিকা
উপসহকারী কৃষি অফিসার
 পলাশবাড়ী, গাইবান্ধা।

 

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

Powered by Facebook Comments

webnewsdesign.com

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com